সপ্তমীর পাতে লুচির সাথে জিভে জল আনা নিরামিষ তরকারি

সপ্তমীর সকাল থেকেই বাড়ির মেয়েদের মধ্যে পুজোর ব্যস্ততা থাকে৷ উপোস করে নিরামিষ লুচি তরকারি যেন স্বর্গীয় আনন্দ দেয়৷ তারই হদিশ রইল আজ৷ লুচির সঙ্গে শুধু আলুর তরকারি নয়, যোগ করুন নতুন স্বাদ৷ পুজোর আসল মজা তো সেখানেই৷
জিরে আলু : চটজলদি নিরামিষ মুখরোচক আইটেম। আলু যারা ভালোবাসেন, তাদের জন্যে এটি প্রিয় হয়ে উঠবে খুব সহজেই৷
উপকরণ
বড় সেদ্ধ আলু ৪টে কিউব করে কাটা
গোটা জিরে ১ চা চামচ
ভাজা জিরের গুঁড়ো ১ চা চামচ
তেল ৪ টেবিল চামচ
লংকার গুঁড়ো ১ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো ১ চা চামচ
নুন স্বাদ মতো
লেবুর রস ১ চা চামচ
ধনে পাতা কুচি ২ টেবিল চামচ


প্রণালী
ঠাণ্ডা প্যানে গোটা জিরে দিয়ে এবার গ্যাস অন করুন। জিরে হালকা করে ভেজে নিন। নুন দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়ে লংকার গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো আর লেবুর রস দিন। সেদ্ধ করা আলুর কিউবগুলো দিয়ে সাবধানে নেড়ে মশলার সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে দিন। নামানোর আগে ধনে পাতা ছিটিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

পনির সবজি : এই রান্নাটা অনেকেই অনেক রকম করে করেন। তবে আমি এই রান্নাটা করতে বলব এই কারণে, এই রান্নায় আপনার পছন্দের যে কোনও সবজি দিতে পারেন।


উপকরণ
পছন্দ অনুযায়ী, আলু, গাজর, বিনস ইত্যাদি।
মটরশুটি-১/২ কাপ
তেজপাতা ১-টা
কালো জিরে ১ চামচ
কাঁচালংকা ২ টি
নারকেল
দুধ
পনির


প্রণালী
সব সবজি বড় বড় করে কেটে নিতে হবে। অল্প তেলে সাঁতলিয়ে নিতে হবে। এরপর পনিরের টুকরা ছোট ছোট করে কেটে তেলে ভেজে গরম জলে ১০ মিনিট ভিজিয়ে নিতে হবে। এগুলো আলাদা বাটিতে উঠিয়ে রাখতে হবে। ঠান্ডা কড়াইয়ে তেল ও ঘি একসঙ্গে দিতে হবে, এরপর তেজপাতা, সামান্য কালো জিরে, চেরা কাঁচালংকা দিয়ে ফোড়ন দিতে হবে।


তারপর এক কাপ দুধের মধ্যে একটু নারকেল মিহি করে বেটে দিতে হবে। এরপর ভালোভাবে কষিয়ে নিতে হবে। কষানো শেষে পনিরের টুকরো সহ সব সবজি কড়াইয়ের ঢেলে দিতে হবে। এভাবে পনিরের তরকারি তৈরি হয়ে যাবে। যারা ভালোবাসেন নামাবার সময় গরম মশলা, ঘি দিয়ে নামিয়ে নিন।

----
-----