চন্ডীগড়: অটোর ভেতরে গণধর্ষণের শিকার তরুণীকে সহমর্মিতা দেখালেন ঠিকই, সেই সঙ্গে ঘটনার দায়ভার তরুণীর উপরই চাপালেন বিজেপি সাংসদ কিরণ খের৷ বলেন, সেই তরুণীর সাবধান হওয়া উচিত ছিল৷ অটোর ভেতরে তিন পুরুষ সহযাত্রী আছে দেখেও তাতে ওঠা উচিত হয়নি ওই তরুণীর৷

আরও পড়ুন: চলন্ত ট্রেনে তরুণীকে গণধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে ধৃত দুই জওয়ান

Advertisement

প্রসঙ্গত, ১৭ই নভেম্বর চন্ডীগড়ের সেক্টর ৩৭-এ স্টেনোগ্রাফি ক্লাসের পর মোহালিতে ফিরছিলেন ওই তরুণী৷ সেটাই ঠিল তরুণীর প্রথম ক্লাস৷ রাত হয়ে যাওয়ায় সেক্টর ৩৭ থেকে অটোয় ওঠে সে৷ কেননা রাতের দিকে চন্ডীগড় থেকে মোহালির বাস পাওয়া যায় না৷ তাই বাধ্য হয়ে অটো উঠতে হয়ে তাকে৷ এরপর অটোয় থাকা তিন যাত্রী ওই তরুণীকে নির্জন জায়গায় নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে এবং সেক্টর ৫৩-এর সামনে ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে চলে যায়৷ পরে স্থানীয় মানুষ তাকে রাস্তায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়৷

বিজেপি সাংসদ বলেন, মানুষের উচিত এধরনের অপরাধ কমাতে নিজেদের ছেলেকে যথাযথ শিক্ষা দেওয়া৷ কিন্তু মেয়েদেরও একটু সতর্ক ও সাবধান থাকা উচিত৷ তখন মুম্বইতে নিজের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরে কিরণ খের বলেন, ট্যাক্সিতে ওঠার পর গাড়ির নাম্বার আমরা অন্য কাউকে জানিয়ে রাখতাম৷ বর্তমান সময়ে রাস্তাঘাটে আরও সাবধানে চলাফেরা করা দরকার৷ এরপরই চন্ডীগড় প্রসঙ্গে ফিরে এসে তিনি বলেন, ওই মেয়েটি যখন দেখল অটোয় তিন জন পুরুষ যাত্রী আছে তখন সেই গাড়িতে তার ওঠা ঠিক হয়নি৷ মেয়েদের নিরাপত্তার জন্যই এই কথা বলছি৷

আরও পড়ুন: লজ্জা! যুবতীকে ধর্ষণ করে স্বামীকে পাঠানো হল সেই ভিডিও

এদিকে গোটা ঘটনায় তিনি মর্মাহত হয়েছেন বলে জানান৷ বলেন, মানুষ এখন অমানবিক হয়ে যাচ্ছে৷ একটি পরিবারে যখন শিশুরা দেখে যে তাদের মা বা অন্যান্য মহিলাদের সম্মান দেওয়া হচ্ছে না তখন তার প্রভাব শিশু মনেও পড়ে৷ তাই আগে ছেলেদের যথাযথ শিক্ষা দিতে হবে৷ চন্ডীগড় গণধর্ষণ ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ আগেই অটো চালক মহম্মদ ইরফান সহ তিন জনকে গ্রেফতার করে৷ এদিন চন্ডীগড় পুলিশের কাজের প্রশংসা করেন কিরণ খের৷

----
--