নিখোঁজ রোদ্দুর, মহুলের দুঃস্বপ্নই কি ছিল এর আভাস

কলকাতা : মেডিক্যাল ক্যাম্পে গিয়ে বিপর্যস্ত জায়গায় গিয়ে সমস্যায় পড়ে রোদ্দুর৷ সেই জায়গায় ধস নেমে তিন-চারটে গাড়ির অ্যাক্সিডেন্ট হয়েছে৷ রোদ্দুরের বস তাঁকে বারবার বারণ করেছিলেন সেই বিপর্যস্ত জায়গায় যেতে৷ কিন্তু সেখানকার মেডিক্যাল ক্যাম্পে যাওয়া খুব জরুরি থাকার কারণে সেদিকে রওনা দেয় রোদ্দুর৷ যে তিন-চারটে গাড়ির অ্যাক্সিডেন্ট হয়, অধিকাংশ যাত্রীকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না৷ রোদ্দুরও একই ভাবে নিখোঁজ৷ তাঁর বস রোদ্দুরের বাড়িতে সঙ্গে সঙ্গে ফোন করে পরিস্থিতির জানান দেন৷ ‘ফাগুন বউ’ সিরিয়ালে এমনই টানটান উত্তেজনায় চলছে এই সপ্তাহের প্রতিটি পর্ব৷

রোদ্দুরের নিখোঁজ হওয়ার খবর পেতেই তাঁর মা খারাপ কিছু আশঙ্কা করতে থাকে৷ যদিও বর্ষণ এবং তার স্ত্রী বাড়ির লোকজনদের আশ্বাস দেয় খারাপ খবরের না ভাবতে৷ এমনও হতে পারে যে রোদ্দুর কোথাও আটকে গিয়েছে৷ অন্যদিকে মোহুলকে নিয়ে সমস্যা লেগেই রয়েছে৷ নীলাঞ্জনা, মহুল এবং অনুরূপের কথা বার্তা শুনে অনুমান করে নিয়েছে মহুল দুষ্চরিত্র৷ তার পর থেকেই মোহুলকে নানা অবমাননার সম্মুখীন হতে হয়৷ রোদ্দুরের নিখোঁজ হওয়ার খবর পেতেই বর্ষণ, নীলাঞ্জনা এবং জোজো ঠিক করে তারা সেই পাহাড়ি এলাকায় যাবে রোদ্দুরকে খুঁজতে৷

মহুল তাদের সঙ্গে যেতে চাইলে বিভিন্ন কথা কাটাকাটি হয়৷ শেষে মহুলকে তারা নিয়ে যাবে না বলেই ঠিক করে নেয়৷ বাড়ির প্রত্যেকে মহুলের বিরুদ্ধে যাওয়ায় সে সিদ্ধান্ত নেয় একাই নর্থ বেঙ্গল যাবে৷ পরের দিন একা একাই বেরিয়ে যায় সে৷ ময়ূরাক্ষী তাকে সকাল সকাল বাড়িতে না দেখতে পেয়ে খুঁজতে শুরু করে৷ তারপর মহুলের বাড়িতে ফোন করতে বাধ্য হয়৷ সেখানবে যোগাযোগ করেও কোনও খোঁজ পেল না তার৷ মহুল কী একাই রোদ্দুরের খোঁজে বেরিয়ে পড়ল? রোদ্দুর কি সুস্থ আছে? নাকি মহুলের দুঃস্বপ্নই সত্যি হয়ে দাঁড়ালো? সবকিছুর উত্তর পাওয়া যাবে আগামী পর্বগুলিতে৷

‘ফাগুন বউ’ ধারাবাহিকটি ডে ওয়ান থেকেই দর্শকের ফেভারিট হয়ে উঠেছে৷ প্রত্যেক সপ্তাহে টিআরপি টপারের শিরোপা ধারাবাহিকটির মাথায়৷ এবারও তার অন্যথা হল না৷ চ্যানেলের টিআরপি শীর্ষে আবারও ‘ফাগুন বউ’৷ সেই সেলিব্রেশনেই নিজের ভক্তদের সামিল করলেন বিক্রম চট্টোপাধ্যায়৷ ট্যুইটারে শেয়ার করেছেন টিআরপি টপার হওয়ার খুশি৷ দর্শক এবং ভক্তদের ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি৷

----
-----