ব্রিগেডে আমন্ত্রিত বিজেপি-বিরোধী নেতাদের দক্ষিণী স্টাইলে পোস্টারে ছয়লাপ শহর

শেখর দুবে, কলকাতা: নেতাজী সুভাষ বিমানবন্দর থেকে কলকাতা ঢোকার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা হল ভিআইপি রোড৷ এয়ারপোর্ট থেকে লেকটাউন হয়ে উল্টোডাঙা অবধি আসা এই রাস্তার দুপাশের রেলিং কার্যত মুড়ে ফেলা হয়েছে ভরতের বিভিন্ন রাজ্যের বিজেপি বিরোধী নেতাদের পোস্টার দিয়ে৷ কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারস্বামী, দিল্লীর মুখমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল থেকে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব, কে নেই সেখানে!

তবে শুধু অখিলেশ কিংবা কুমারস্বামীই নন রাতে সাজানো নিয়ন আলোতে ঝলমল করতে থাকা লেকটাউন এবং সংলগ্ন রাস্তার রেলিংয়ে ঝোলানো হয়েছে ওমর আবদ্দুলা, চন্দ্রবাবু নাইডুদের ছবিসহ ব্যানার৷ পাশাপাশি গুজরাটের বিজেপি বিরোধী মুখ হার্দিক প্যাটেলের ছবিও রয়েছে এই ব্যানারগুলিতে৷ তৃণমূলের তরফে লাগানো এই ব্যানারগুলিতে বিভিন্ন রাজ্যের নেতাদের ব্রিগেডে স্বাগত জানানো হয়েছে৷

প্রায়ই একই ছবি ধরা পড়ল চিংড়িঘাটা থেকে বেলেঘাটা বাইপাস আসার বাস রাস্তায়৷ সেখানেও তামিলনাড়ুর ডিএমকে দলের প্রেসিডেন্ট এম কে স্টালিন, বিহারের আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব, কাশ্মীরের ন্যাশনেল কনফারেন্স দলের নেতা ফারুখ আবদ্দুল্লা সহ আরও অনেকের ছবি লাগানো হয়েছে রাস্তার দুধারে৷

ব্রিগেডের সমাবেশকে মোদী বিরোধী মহামঞ্চ হিসেবে তুলে ধরতে তত্পর তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু সেই সমাবেশে দেশের কতগুলি অ-বিজেপি দলের সুপ্রিমোরা আসবেন তা এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নয়৷ তবে বিজেপির চার বিদ্রোহী নেতা শত্রুঘ্ন সিনহা, যশোবন্ত সিনহা, রাম জেঠমালানি, অরুন সৌরিকে ব্রিগেডের মঞ্চে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দেখা যাবে বলে তৃণমূলের একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে৷

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের অনেকটা আগে থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রীত্বের দাবিদার হিসেবে তুলে ধরতে চেয়েছেন রাজ্যের তৃণমূল নেতারা৷ এই ব্রিগেডের সাফল্যের উপর অনেকটাই নির্ভর করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সর্বভারতীয় গ্রহণ যোগ্যতা৷

---- -----