সচিনই হলেন ‘আসল’ রাম

নয়াদিল্লি: বোলারদের কাছে একসময় ত্রাশ হয়ে উঠছিল ভারতের সচিন-সেহওয়াগের ওপেনিং জুটি৷ দুই ডানহাতি ব্যাটিংয়ে নামলে পাওয়ার প্লে-তে বল হাতে সমস্যায় পড়তেন ওয়াশিম আক্রম-শোয়েব আখতাররা৷ তবে সেই পার্টনারশিপ ছিল ক্রিকেটের, এবার নতুন পার্টনারশিপ সচিন-সেহওয়াগের৷ সেই পার্টনারশিপে সচিন যদি রাম হন, হনুমান তবে সেহওয়াগ৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় মজার একটি টুইটে এমনটাই বলেছেন ‘নবাব অফ নজফগড়’৷

গদা হাতে সচিনের পায়ের কাছে হাঁটু গেড়ে বসে পড়েন সেহওয়াগ৷ সচিন সেখানে সেহওয়াগের কাঁধে হাত দিয়ে রয়েছেন৷ এ ছবি দেখলে এক মুহূর্তের জন্য মনে হবে সেহওয়াগ যেন রাম ভক্ত হনুমান৷ মজার এই ছবি পোস্ট পরে ‘কিং অফ ইন্টারনেট’ সেহওয়াগ লিখেছেন, ‘ছবিতে সচিন হলেন ক্রিকেটের রাম৷ আর ভগবানের পায়ের কাছে রয়েছি আমি’৷

আদতে ‘হোয়াট দ্য ডাক’ নামের এক অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে এসেছিলেন সচিন-সেহওয়াগ৷ সেই অনুষ্ঠানের তৈরি হয় মজার এই মুহূর্তে৷ যেখানে ক্রিকেটঈশ্বর সচিনের পায়ের কাছে বসে পড়েন সেহওয়াগ৷

মজার এই ওয়েব সিরিজতে ড্রেসিংরুমের কিছু সিক্রেট রিভিল করেছেন সচিন৷ ড্রেসিংরুমে সেহওয়াগের বকবক থামাতে নাকি কলা খেতে দিতেন মাস্টারব্লাস্টার৷ রয়েছে আর অনেক সিক্রেট৷ সেহওয়াগ যখন ভারতীয় দলে এসেছিলেন তখন নাকি খুবই লাজুক ছিলেন৷ শুরুতে সচিনের সঙ্গে বিশেষ কথা বলতেন না বীরু৷ এরপর একদিন লাঞ্চ অফার করেন সচিন৷ সেহওয়াগ জানান তিনি ভেজিটেরিয়ান৷ পরে সেহওয়াগ খোলসা করে জানিয়েছিলেন, ‘বাড়ি থেকে নাকি তাঁকে বলা হয়েছিল, চিকেন খেলে মোটা হয়ে যেতে পারেন৷’ যা শুনে হাসি থামাতে পারেননি ক্রিকেটঈশর৷

ওয়েব সিরিজে দুই বন্ধুর কথোপকথনে উঠে এল অন্য এক সচিনের কাহিনী৷ ড্রেসিংরুমে সচিন সতীর্থদের ব্যাটই শুধু সারিয়ে দিতেন এমন নয়, অনেক সময় জুতো থেকে শুরু করে গ্লাভস, থাইগার্ড পর্যন্ত মেরামত করে দিতেন লিটল মাস্টার৷ ক্রিকেট থেকে অবসরের পরও একটুও পাল্টাননি সচিন,পার্থক্য বলতে এখন বাড়ির পাখা, টিভি কিছু দেখলেই মেরামত করতে শুরু করে দেন তিনি৷ দেওয়াল নোংড়া থাকলে নিজে হাতেই তা পরিষ্কার করতে শুরু করে দেন মিস্টার তেন্ডুলকর৷ এটাতেই নাকি মজা পান সচিন৷

---- -----