সুস্থ থাকার মন্ত্র লুকিয়ে ‘অরগ্যানিক ফুড’-এ

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: ‘যত খুশি তত খাও, জলদি লাও জলদি লাও’। সত্যজিৎ রায়ের ‘গুপি বাঘা ফিরে এলো’ ছবির এই গানের বলছে পেট পুড়ে খাওয়ার কথা। কিন্তু একবিংশ শতাব্দীর ট্রেন্ড অনুযায়ী আপনাকে খেতেও হবে আবার ফিটও থাকতে হবে। তাই চারিদিকে ভেজাল খাবার ছেড়ে খান অরগ্যানিক খাবার। ওয়াবি হাবি ক্যাফে এই অরগ্যানিক খাবারের বেশ কয়েকটি পদ নিয়ে এসেছে।

এবার প্রশ্ন হল বাঙালি ভেজ খবার শুনেছে, ননভেজ দিনরাত্রি খাচ্ছে। স্ট্রীট ফুড খেয়ে দিন কে দিন ভুঁড়ি বাড়াচ্ছে। আবার ভাত পোস্তর মতো কন্টিনেন্টালেও মন মজে বাঙালির। কিন্তু যেটা আসলে স্বাস্থ্য ভালো করছে সে খাবারের বিশেষ তোয়াক্কা করে না কলকাতা। সেই খাবারই হল অরগ্যানিক খাদ্য।

- Advertisement -

বিষয়টা আরও একটু পরিস্কার করে বলা যাক, বেঁচে থাকার জন্য খাবার যেমন জরুরি, তেমনি এ খাবারই হতে পারে জীবনবিনাশী। খাদ্য উৎপাদনে কেমিক্যালযুক্ত সার, কীটনাশক এবং ফরমালিনের ব্যবহারের কারণে বেড়েই চলেছে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, লিভারের রোগসহ অন্যান্য শারীরিক সমস্যা। খাবার তখনই হতে পারে জীবন রক্ষাকারী, যখন তা হয় কেমিক্যাল ও কীটনাশকমুক্ত। এমনই একটি খাবার হলো অর্গানিক খাবার। অর্গানিক খাবারের পুষ্টিমান অনেক বেশি। বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদিত শস্য, ফল ও সবজির চেয়ে এ খাবার থেকে ২১ শতাংশের বেশি আয়রন, ২৭ শতাংশের বেশি ভিটামিন-সি, ২৯ দশমিক ৩ শতাংশের বেশি ম্যাগনেশিয়াম ও ১৩ দশমিক ৬ শতাংশের বেশি ফসফরাস পাওয়া সম্ভব।

এমনই কয়েকটি পদ নিয়ে এসছে ওয়াবি হাবি ক্যাফে। স্যুপ থেকে মকটেল সবরকমের অরগ্যানিক খাবারের রয়েছে এই অরগ্যানিক খাবারের তালিকায়। স্যুপের মধ্যে রয়েছে, ‘স্পাইসি বার্লি ইন এ কাপ’, ‘আমন্ড দে লাইট’। স্টার্টারের তালিকায় রয়েছে ‘রাইস কেক’, ‘রেনবো ভেজ পকেট’। রয়েছে ‘এক্সটিক বাতাবি স্যলাড’। মেন কোর্সে রয়েছে ‘হোলসাম ভেজ বোল’। মকেটেলে মিলবে ‘ব্যনানা অশ্বাগন্ধা’, ‘ফিগ হিমোগ্লোবিন মিক্স’।

এর মধ্যেই কয়েকটি খাবার একদম হাতে গরম বানিয় দিলেন বিখ্যাত শেফ শন কেনওয়ার্দি। তিনি বলেন, “বিদেশে এখন অরগ্যানিক ফুডের ব্যাপক চাহিদা। সেখানে এতো চাষবাস এতো বেশী পরিমাণে হয় না। খাবারকে অরগ্যানিক করতে সেখানে অনেক খাটতে হয়। কিন্তু কলকাতায় একদম মাটি থেকে প্রাপ্ত শাক সব্জি প্রচুর পাওয়া যায়।” তাই তিনি মনে করেন প্যাক করা খাবারের চেয়ে এই ধরনের খাবার বেশী খাওয়া উচিৎ। শনের কথায়, “কলকাতার অনেকেই এই প্যাকেজড ফুডের দিকে বেশী ঝুঁকছেন। আমি বলব আপনারা মাটি থেকে পাওয়া বাজারে বিক্রি হওয়া খাবারই বেশী খান। এটাই আপনাদের স্বাস্থ্য ঠিক রাখবে। এটাই আপনাদের অরগ্যানিক ফুড” তিনি আরও বলেন, “এটাও ঠিক যে অনেকে বেশী পয়সা রোজগারের জন্য কীটনাশক মিশিয়ে দিচ্ছেন। এটা সত্যি বিপজ্জনক। তাই বলব বাজার থেকে সব্জি কিনে এনে একটু গরম জলে ধুয়ে নিন। তাহলে ওই কীটনাশকের প্রভাব অনেকটাই কমে যাবে।”

খাদ্যাভ্যাস অনুযায়ী ভাগ করলে এখন দুই ধরণের মানুষ আছেন সমাজে। একদল ফিট, আরেকজন ফ্যাট। এবার ফিট থাকবেন না ফ্যাট থাকবেন সেটা আপনার দায়িত্ব। কিন্তু সময় বলছে, ‘দাদা অরগ্যানিক হয়ে যান’।

Advertisement ---
---
-----