নয়াদিল্লি: যদি কোনোদিন সত্যিই ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়, তাহলে পাকিস্তান যত পরিমাণ যুদ্ধবিমান পাঠাবে, তার দ্বিগুণ এয়ারক্রাফট পাঠাতে পারবে ভারত। বায়ুসেনার বিশেষ মহড়া ‘গগনশক্তি’ চলাকালীন এমনটাই বললেন, এয়ার চিফ মার্শাল বিএস ধানোয়া।

‘গগনশক্তি’ চলাকালীন ধানোয়া বলেন, এই মহড়ায় প্রমাণিত হয়েছে যে ৮০ শতাংশ এয়ারক্রাফটই সক্রিয় রয়েছে বায়ুসেনায়। এর জন্য ইঞ্জিনিয়ারদের ধন্যবাদ দেন তিনি।

পাকিস্তান এয়ার ফোসর্ডকে টেক্কা দিতেই এই মহড়ায় নিজেদের শক্তি পরীক্ষা করছে এয়ার ফোর্স। যাতে সংখ্যায় পাকিস্তানের থেকে দ্বিগুন এয়ারক্রাফট থাকে ভারতের কাছে, সেটাই বায়ুসেনার লক্ষ্য। বর্তমানে যেসব এয়ারক্রাফট কার্যকর রয়েছে, সেগুলো সবকটিই ভয়ঙ্কর বলে বর্ণনা করেছেন এয়ার ফোর্স চিফ।

অন্যদিকে, এই মহড়ার অংশ হিসেবে মাত্র তিনদিনে দেশের আকাশে ১০,০০০ বার আকাশে উড়েছে এয়ার ফোর্সের প্রায় সবকটি বিমান। এয়ারক্রাফটের অভাব থাকা সত্বেও দুই শত্রুদেশের মুখোমুখি একইসঙ্গে লড়াই করার ক্ষমতা রয়েছে, এটাই প্রমাণিত করেছে এই ‘এক্সারসাইজ গগনশক্তি’।

সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, ‘এই তিনদিনে দেশের সবকটি কমব্যাট এয়ারক্রাফট আকাশে ওড়ানো হয়েছে। এর থেকে বোঝা গিয়েছে যে, কমব্যাট এয়ারক্রাফটের যে অভাব আছে তা রণক্ষেত্রে কোনও প্রভাব ফেলবে না। দুই দেশের সঙ্গে যুদ্ধেও কোনও সমস্যা হবে না।

----
--