বল বিকৃতি কাণ্ডে স্মিথের পথে হাঁটলেন ওয়ার্নার

সিডনি: বল বিকৃতি কাণ্ডে অস্ট্রেলিয়ান প্রাক্তন অধিনায়কের পথে হাঁটলেন বরখাস্ত সহঅধিনায়ক৷ বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইট করে স্মিথ জানিয়েছিলেন, তিনি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক বছরের নির্বাসনের সিদ্ধান্ত বিরুদ্ধে আইনি পথে যাচ্ছেন না৷ বৃহস্পতিবার স্মিথের পথে হেঁটে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন সহঅধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারও জানিয়ে দিলেন, বল বিকৃতি কাণ্ডের সাজা মাথা পেতে দিচ্ছেন তিনি৷

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সিদ্ধান্তে বিরুদ্ধে আইনি কোনও ব্যাবস্থা নেবেন না ওয়ার্নারও৷ এর আগে স্মিথ-ব্যানক্রফট তাঁদের শাস্তির বিরুদ্ধে আইনি সাওয়াল না করার সিদ্ধান্ত নিলেও ওয়ার্নার তাঁর শাস্তি নিয়ে কোর্টের দারস্থ হবেন বলে শোনা যায়৷ সেই বিষয়ে ধোঁয়াশা দূর করে বৃহস্পতিবার নিজের অবস্থান পরিষ্কার করে দিলেন অজি বাঁ-হাতি ক্রিকেটার৷

নিজের টুইটে ওয়ার্নার লিখেছেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে জানাতে চাই তাঁদের সিদ্ধান্ত আমি মাথা পেতে মেনে নিচ্ছি৷ বল বিকৃতিকে মদত দেওয়ার জন্য দায় স্বীকারও করেছি৷ আমি ক্ষমাপ্রার্থী৷ ফের ভালো মানুষ হওয়ার জন্য সবরকম চেষ্টা করব৷’

এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে দেশে ফিরে এসে সাংবাদিক সম্মেলনে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওয়ার্নার৷ কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতি তাঁর সজ্ঞানেই হয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন তিনি৷ শুধু তাই নয়, পুরো ঘটনার দায়ভার নিজের কাঁধে তুলে নেন৷ ভবিষ্যতে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ফের ফের তাঁকে নাও খেলতে দেখা যেতে পারে, এই জল্পনা উসকে দেন ওয়ার্নার৷ অন্যদিকে অস্ট্রেলিয়ান মিডিয়া সূত্রে খবর, মোটা টাকার অর্থ নিয়ে কোনও টিভি চ্যানেলের মুখোমুখি হয়ে মুখ খুলতে পারেন নির্বাসিত এই ওপেনার৷ দেশে ফিরে সাংবাদিকদের একাধিক প্রশ্ন এড়িয় গিয়ে তিনি সব ঘটনার জন্য নিজেকেই দায়ী করেছিলেন৷ পরে টুইটে জানান ‘অনেক প্রশ্নেরই উত্তর দিতে পারলাম না, সঠিক সময় সেই উত্তর দেওয়া যাবে৷’

আরও পড়ুন- শাস্তির বিরুদ্ধে আবেদন করবেন না স্মিথ

শুধু ওয়ার্নার নয়, প্রাক্তন অধিনায়ক স্মিথও অস্ট্রেলিয়ায় ফিরে বল বিকৃতি কাণ্ডের পুরো দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে কান্নায় ভেঙে পড়েছিলেন৷ দুই ক্রিকেটারকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে ১২ মাসের নির্বাসনে পাঠিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া৷ অন্যদিকে ব্যানক্রফটকে নয় মাসের নির্বাসনে পাঠানো হয়েছে৷

----
-----