দর্শকের সামনে হাজির বহু চর্চিত কুম্ভমেলার লেজার শো

প্রয়াগরাজ: দেশ বিদেশ থেকে আসা লক্ষ লক্ষ পুণ্যার্থীকে স্বাগত জানাতে তৈরি প্রয়াগরাজ৷ চারিদিকে এখন সাজো সাজো রব৷ শেষবেলার প্রস্তুতি তুঙ্গে৷ কুম্ভমেলাকে পৃথিবীর অন্যতম সেরা ইভেন্ট করে তুলতে চেষ্টার কোনও ক্রুটি রাখছে না যোগী সরকারও৷ শেষলগ্নে কুম্ভমেলা নিয়ে পুণ্যার্থীদের ভক্তি, শ্রদ্ধা ও প্রত্যাশার পারদ আরও বহুগুণ বাড়িয়ে দিল একটি লেজার শো৷

১৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এই মেলা চলবে ৫৫ দিন ধরে৷ মহাকুম্ভ শুরুর তিনদিন আগে সামনে এলো একটি গ্র্যান্ড লেসার৷ ৫৮ সেকেন্ডের একটি লেসার শোতে কুম্ভমেলার ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে৷

শুধু ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকেই নয়, বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে মানুষজন ভিড় জমাবেন গঙ্গা, যমুনা এবং সরস্বতী অর্থাৎ তিন নদীর মিলনস্থলে। আর তাই সবার কথা ভেবেই বিভিন্ন দেশের খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কুম্ভের একটি জায়গায় তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন ধরণের স্টল। যে স্টলগুলিতে থাকবে নানারকমের খাবার। থাকবে বিভিন্ন রাজ্যের স্পেশান পদও।

কুম্ভকে সামনে রেখে এলাহাবাদের পর্যটন ব্যবস্থাকে তুলে ধরতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী। আর সেজন্যে বিভিন্ন রকমের ব্যবস্থা ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে গোটা শহরকে সাজিয়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন রঙয়ে। কুম্ভে থাকার জন্যে বিশেষ তাবু খাটিয়েছে সেখানকার পর্যটন দফতর। সেই সমস্ত তাবুতে থাকছে বিলাসবহুল সমস্ত ব্যবস্থা।

শুধু থাকলেই তো হবে না, খেতেই তো হবেই। আর সে কথা মাথায় রেখেই ফুড হাব তৈরি করা হয়েছে। যেখানে ভারতের ১৬টি রাজ্যের এলাহি খাবারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। থাকছে একাধিক পদও। এই কুম্ভমেলার আয়োজনে যোগী সরকার ২ হাজার ৮০০ কোটি টাকা নির্ধারণ করেছে৷ ৩২০০ হেক্টর জমির উপর হচ্ছে মেলা৷ ১ লক্ষ ২২ হাজার টয়লেট তৈরি করা হয়েছে৷