স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বাবরি মসজিদ ধ্বংসের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার শহরের রাস্তায় নেমেছে তৃণমূল, সিপিএম, কংগ্রেস-তিন রাজনৈতিক দলই৷ কিন্তু তৃণমূল ও সিপিএমের তুলনায় প্রদেশ কংগ্রেসের কালা দিবসের কর্মসূচী কার্যত জৌলুসহীন হয়ে রইল৷ বিশেষ করে কংগ্রেসের রাজনৈতিক ‘বন্ধু’ সিপিএম যখন কয়েক হাজার কর্মী-সমর্থক নিয়ে শহরের রাস্তায় দাপাল তখন বাবরি ইস্যুতে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দলের কর্মসূচী কোনওরকমে মিটলো৷

পশ্চিমবঙ্গে খাতায়-কলমে বিরোধী দল কংগ্রেস৷ যদিও দলবদলের পর তাদের ৪৪ জন বিধায়ক সংখ্যা কমে ২৬ জনে দাঁড়িয়েছে৷ বর্তমানে বামেদের বিধায়ক সংখ্যা ৩১৷ কংগ্রেসের থেকে তারা সামান্য এগিয়ে৷ তবে দুই বিরোধী দলের হাল প্রায় একই৷ কিন্তু দলের খারাপ সময়েও বৃহস্পতিবার সিপিএম যে শক্তি দেখাল তার ধারেকাছে দেখা গেল না প্রদেশ কংগ্রেসকে৷

Advertisement

বৃহস্পতিবার বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৬ তম স্মরণ দিবস ছিল৷ এদিন শহরে ধর্মনিরপেক্ষতার স্বার্থে মিছিল করে বাম নেতৃত্ব। বামফ্রন্ট সহ ১৭ টি সহযোগী দল এই মহা মিছিলে যোগ দিয়েছিল৷ বিমান বসু, সূর্যকান্ত মিশ্র সহ বামফ্রন্টের প্রথম সারির নেতৃত্ব সেই মিছিলে হেঁটেছেন৷ অন্যদিকে তৃণমূল উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতায় দুটি মিছিল করেছে৷ এই একই ইস্যুতে জেলায় জেলায় প্রদেশ কংগ্রেসের কর্মী-সমর্থকরা কালো ব্যাচ পড়ে কালা দিবস পালন পালন করেছেন৷ দুটো দলের মিছিলই প্রচারের আলো পেলেও কংগ্রেসের কর্মসূচী সম্পর্কে সেভাবে কেউ জানতেই পারল না৷

এব্যাপারে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র বলেন, ‘‘আমরা এই কর্মসূচীকে শুধুমাত্র কলকাতাকেন্দ্রিক করে রাখিনি৷ জেলায় জেলায় ছড়িয়ে দিয়েছে৷ পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই আমরা বাবরি মসজিদ ধ্বংসের প্রতিবাদে কালা দিবস পালন করছি৷তবে যেহেতু ১২ তারিখ জনসভার প্রস্তুতি চলছে তাই ওদের মতো আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে কিছু করিনি৷’’

বাবরি মসজিদ ধ্বংসের প্রতিবাদে মিছিল মানে কেন্দ্রের শাসক দলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ৷ দেশে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস৷ বিজেপির বিরুদ্ধে তাদেরই সব রাজ্য বেশি সক্রিয় হওয়ার কথা৷ আবার যেখানে সামনে লোকসভা ভোট৷ কিন্তু এরাজ্যে এমন একটা ইস্যু নিয়ে কংগ্রেস কেন গা ছাড়া মনোভাব দেখাল তা নিয়েই রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠছে৷

----
--