স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শনিবার সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের জনসভায় ড্রোন ওড়ানোর অনুমতি পায়নি রাজ্য বিজেপি৷ সভায় ওয়াকি-টকি ব্যবহার করা যাবে কিনা তাও জানে না রাজ্য পার্টি৷ বিজেপির তরফ থেকে নিরাপত্তার কারণে ড্রোন ওড়ানোর অনুমতি চাওয়া হয়েছিল কলকাতা পুলিশের কাছে৷ ড্রোন ক্যামেরায় আকাশ থেকো মেয়ো রোডের ছবি দেখে নিতে চায় বিজোপি৷ কিন্তু মঙ্গলবার বিকেল পর্যন্ত কলকাতা পুলিশের থেকে কোনও অনুমতি আসেনি৷

অমিত শাহের সভা কোথায় হবে তা নিয়ে কিছুদিন আগেই উত্তাপ চড়েছিল৷ কলকাতা পুলিশ থেকে রানি রাসমণি রোডে সভার অনুমতি দেওয়া হয়নি৷ বিজেপির দেওয়া ৫টি জায়গার তালিকা থেকে মেয়ো রোডে সভা করার অনুমতি দেয় পুলিশ৷ তবে সভার অনুমতি দেওয়া নিয়ে বিজেপির যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে কলকাতা পুলিশ ট্যুইট করে৷

ইতিমধ্যেই পশ্চিম মেদিনীপুরের কলেজ-কলেজিয়েট মাঠে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনসভায় প্যান্ডেল ভেঙে প্রায় ১০০ জন জখম হওয়ার ঘটনার পর রাজ্য পার্টি রীতিমতো সতর্ক৷ ওই দূর্ঘটনার পর রাজ্য পার্টি যতই বলুক, খারাপ আবহাওয়া এবং মোদীকে দেখতে এলাকার মানুষ প্যান্ডেলের মাথায় উঠে পড়ায় ওই দূর্ঘটনা ঘটেছে, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব তা ভালো চোখে দেখেনি৷ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের রিপোর্টে সন্তুষ্ট হননি কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷ জাতীয় সহ সাধারণ সম্পাদক শিবপ্রকাশকে বাংলায় বড় সভা সংক্রান্ত খুঁটিনাটি বিষয়গুলি দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয়৷

মেদিনীপুরের জনসভার প্যান্ডেল যে ডোকরোটর সংস্থা করেছিল, সেই সংস্থাকে অমিত শাহের সভার কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়নি৷ যদিও উল্লেখ করা যেতে পারে, কলকাতার মহম্মদ আলি পার্ক লাগোয়া ওই ডেকরেটর সংস্থা পুরুলিয়ার বলরামপুরে জুলাই মাসে অমিত শাহের সভার প্যান্ডেল তৈরির দায়িত্বে ছিলেন৷ শনিবারের সভায় নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে কলকাতা পুলিশ৷ মঞ্চ তৈরি করতে কাজে লাগালো হচ্ছে দলের বিশেষজ্ঞদের৷

কিন্তু নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে ড্রোন ওড়াতে পারবে কি না তা জানতে কলকাতা পুলিশের দিকেই তাকিয়ে বিজেপি৷

----
--