‘বিজেপি শাসিত রাজ্যেই ধর্ষণের হার বেশি’

রায়পুর : ধর্ষণের ব্যাপারে কেন চুপ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ এই প্রশ্ন আগেও তুলেছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ এবার একধাপ এগিয়ে তিনি বলেন বিহার ও উত্তরপ্রদেশের হোমের ঘটনার পরেও চুপ রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী মোদী৷ তাঁর এই নীরবতা বিজেপির ব্যর্থতাকেই চোখে আঙুল দিয়ে দেখাচ্ছে৷ গত ৪ বছরে নারী নির্যাতনের হার দেশে বেড়েছে বলে অভিযোগ কংগ্রেস সভাপতির৷ তিনি বলেন দেশের ৩০০০ বছরের ঐতিহ্যে এই ৪ বছর কলঙ্কিত অধ্যায়৷

তিনি আরও বলেন বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতেই নারী নির্যাতনের হার বেশি৷ সেখানেই আইন শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে সবথেকে বেশি৷ কেন? এর জবাব প্রধানমন্ত্রীকে দিতে হবে৷ কারণ সাধারণ মানুষ এই উত্তর জানতে চাইছে বলে জনসভায় বলেন রাহুল গান্ধী৷

এই জনসভায় ওঠে কর্মসংস্থান দুর্নীতির প্রসঙ্গও৷ রাহুল বলেন দুর্নীতির ক্ষেত্রে অন্ধ সেজে রয়েছে বিজেপি৷ কোনও অভিযোগই তাদের চোখে পড়ছে না৷ নওয়াজ শরিফের প্রসঙ্গ তুলে এনে রাহুল বলেন, প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রীও দুর্নীতির দায়ে জেল খাটছেন, অথচ ছত্তিসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের ছেলের সম্পত্তি ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপে রয়েছে৷ এনিয়ে তদন্তের জন্য সরকারের কাছে দাবি করেছে বিরোধীরা। তবে কোনও তদন্ত শুরু হয়নি।

কর্মসংস্থানের প্রসঙ্গে রাহুল একহাত নেন মোদীকে৷ বলেন কাজের সুযোগ ক্রমশ হারাচ্ছে দেশ থেকে৷ আর দেশের প্রধানমন্ত্রী যুব সম্প্রদায়কে পকোড়া তৈরি করতে বলছেন৷

এরআগে, ট্যুইটারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে একহাত নেন রাহুল গান্ধী। নাবালিকাদের যৌন নিগ্রহের মামলাগুলি দ্রুত গতিতে বিচার শেষ করে দোষীকে শাস্তি দিতে উদ্যোগী হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।
কংগ্রেস সভাপতির ট্যুইট, ২০১৬ –য় ১৯৬৭৫টি নাবালিকা, শিশুকন্যা ধর্ষণের খবর রয়েছে। এটা লজ্জার কথা। প্রধানমন্ত্রী আমাদের মেয়েদের ন্যয়বিচার দেওয়ার ব্যাপার সিরিয়াস হলে এই মামলাগুলির ফাস্ট ট্রাক করে দ্রুত বিচারের মাধ্যমে দোষীদের শাস্তি দেওয়ার ব্যবস্থা করুন।

Advertisement
---