সমকামী গৌরবের সিপিএমের সদস্যপদ পাওয়া নিয়ে কী বললেন সুজন?

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

শেখর দুবে, কলকাতা: বেহালার গৌরব ঘোষ একজন সমকামী, সেই জন্য কী সিপিএমের সদস্য পদ পেতে অসুবিধে হচ্ছে? এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে কিছুটা বিরক্তই হলেন সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী। কলকাতা২৪x৭-কে তিনি বলেন, “সিপিএম কাকে সদস্য পদ দেবে না দেবে সেটা কী সংবাদ মাধ্যম ঠিক করে দেবে? এত খবর আছে, পেট্রোলের দাম বাড়ছে কই সেসব নিয়ে তো আপনাদের কোনও অভিযোগ নেই।”

গৌরব পুরনো এসএফআই কর্মী। জেএনইউ বিশ্ববিদ্যালয়ে এসএফআইয়ের হয়ে নির্বাচনও লড়েছে সে। এই বিষয়টির উল্লেখ্য করে সুজনবাবু বলেন, “কই আপনারা তো বলছেন না যে গৌরব এসএফআইয়ের হয়ে নির্বাচন লড়েছে। এটাই তো প্রমাণ করে সমকামী বা এরকম কোনও বিষয়ের উপর সিপিএমের সদস্যপদ পাওয়া না পাওয়া নির্ভর করে না। যেটা নিয়ে আমাদের প্রশংসা পাওয়া উচিৎ ছিল সেটাকে নেগেটিভ করে বলা হচ্ছে।”

২০১৩ সালে সমকামিতা অপরাধ বলে রায় দিয়েছিল সুপ্রিমকোর্ট৷ ২০১৮ সালে নিজেদের দেওয়া রায় পুনর্বিবেচনা করার কথা ঘোষণা করে শীর্ষ আদালত৷ বৃহস্পতিবার সকালে সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ ঐতিহাসিক রায়ে ঘোষণা করে, ‘সমকামিতা অপরাধ নয়’৷

- Advertisement -

এরপরই বেহালার গৌরব ঘোষকে নিয়ে লেখালেখি শুরু হয় সংবাদ মাধ্যমে। সংবাদমাধ্যমের খবর অনুসারে গৌরব একজন সমকামী এবং পুরনো এসএফআই কর্মী কিন্তু সে সিপিএমের সদস্যপদ পায়নি এখনও। বিষয়টি নিয়ে সুজন চক্রবর্তী বলেন, “দেখুন সিপিএমের সদস্যপদ পাওয়ার একটি নির্দিষ্ট পদ্ধতি রয়েছে। সেখানে কে সমকামী, কে মেয়ে কে ছেলে এসব দেখা হয় না। নির্দিষ্ট নিয়ম মেনেই সদস্যপদ দেওয়া হয়।”

Advertisement
---