‘রাম জন্মভূমিতে এয়ারো ইণ্ডিয়া শো করা কোনও ব্যাপার নয়’

লখনউ: বেঙ্গালুরু থেকে লখনউ স্থানান্তরিত হওয়ায় বিতর্ক তৈরি হয়৷ তারই মাঝে নয়া বিবৃতি উত্তরপ্রদেশের এক মন্ত্রীর৷ যা নিয়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে৷ তিনি বলেন উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে এয়ারো ইন্ডিয়া শো আয়োজন করা কোনও কঠিন ব্যাপার নয়৷ কারণ এটা রাম জন্মভূমি৷

তিনি আরও বলেন উত্তরপ্রদেশের মাটিতে শ্রীকৃষ্ণের জন্ম হয়েছিল৷ ভগবান রামেরও জন্মস্থান এই রাজ্য৷ তাই সেই রাজ্যে এয়ারো ইন্ডিয়া শো আয়োজন করা কোনও কষ্টকর ব্যাপারই নয়৷ উত্তরপ্রদেশ সরকার যদি কুম্ভ মেলা আয়োজন করতে পারে, তবে এয়ারো ইন্ডিয়া শো অনেক ছোট ব্যাপার বলে মত তাঁর৷
খুব শীঘ্রই কুম্ভ মেলার আয়োজন করবে রাজ্য সরকার, আর কুম্ভমেলা আয়োজন করতে পারলে যে কোনও কাজই সহজ৷ তাই এয়ারো ইন্ডিয়া শো করাও রাজ্য সরকারের কাছে কোনও সমস্যার নয় বলে মত রাজ্যের অসামরিক বিমান পরিবহণ মন্ত্রী নন্দ গোপাল নন্দীর৷

এর আগে, এয়ারো ইন্ডিয়া শো বেঙ্গালুরু থেকে লখনউতে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক৷ এনিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়৷ এয়ারো ইন্ডিয়া শো ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে শেষ বার আয়োজিত হয় বেঙ্গালুরুতে৷ এবার মনে করা হচ্ছে লখনউতে এই শোয়ের আয়োজন করা হবে৷ চলতি বছরের অক্টোবর-নভেম্বর মাস নাগাদ এই শোয়ের আয়োজন করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রকের পক্ষ থেকে সরকারি ভাবে এই খবর ঘোষণা করা হয়নি৷

- Advertisement -

প্রতিরক্ষা মন্ত্রক জানিয়েছিল গুজরাট, রাজস্থান, ওড়িশা, তামিল নাড়ু ও উত্তরপ্রদেশের পক্ষ থেকে এই শো আয়োজন করার আবেদন জমা পড়ে৷ এখনও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি৷ শনিবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণকে অনুরোধ করেন যাতে এয়ারো ইন্ডিয়া শো লখনউতে আয়োজন করা যায়৷ এতে রাজ্যের প্রতিরক্ষা বিভাগের যন্ত্রপাতি উৎপাদন শিল্পে গতি আসবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তবে এই উদ্যোগের বিরোধিতা করেছেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী এইচ ডি কুমারাস্বামী৷ তাঁর বক্তব্য ভারতের ডিফেন্স হাব বেঙ্গালুরু৷ সেখান থেকে এই শো সরিয়ে নেওয়ার খবর দুর্ভাগ্যজনক৷

Advertisement
---