ওয়াশিংটন: এক ব্যক্তি তাঁকে এসে বলেছিলেন, ‘ট্রাম্পের সঙ্গে যা হয়েছে তা ভুলে যাও।’ মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে বলেছিলেন, ‘ওর মায়ের সঙ্গে যদি কিছু হয়ে যায়, তাহলে সেটা খুব খারাপ হবে।’ সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে এমনই বিস্ফোরক তথ্য দিলেন পর্নস্টার স্টর্মি ড্যানিয়েল। তাঁর সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অবৈধ সম্পর্ক প্রকাশ্যে এসেছে আগেই।

বিপত্তির শুরুই হয়েছিল সংবাদমাধ্যমে তাঁর মুখ খোলা নিয়ে। স্টর্মির নাম প্রথম প্রকাশ্যে আসে ২০১৬ সালে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময়ে। সেই সময়ে কিছু পত্রপত্রিকা তৎকালীন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ২০০৬ সালে স্টর্মির সম্পর্কের খবর খুঁড়ে বার করে। তার পর থেকে একের পর এক বিতর্কিত তথ্য উঠে এসেছে ট্রাম্প-স্টর্মিকে নিয়ে। এবার মার্কিন টিভি চ্যানেলকে সরাসরি সাক্ষাৎকার দিলেন তিনি। যদিও তাঁর সব বক্তব্যকেই অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস। বিবৃতি দিয়েছেন মেলানিয়া ট্রাম্পের মুখপাত্রও।

এক ঘণ্টার শো’তে তিনি মুখ খুলেছেন হোটেলের ঘরে ট্রাম্পের কুৎসিত আচরণ নিয়েও। দাবি করেছেন, ট্রাম্প নাকি বলেছিলেন, তাঁকে দেখলে ইভাঙ্কার কথা মনে পড়ে। এর আগে একই দাবি জানিয়েছিলেন প্লেবয় মডেল ক্যারেন ম্যাকডোগালও।

স্টর্মি জানান, ২০১১ সালে ট্রাম্প জানতে পেরেছিলেন একটি পত্রিকাকে সাক্ষাত্‍কার দিয়েছেন তিনি। এ-ও জানতে পারেন, তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়েও কথা হয়েছে ওই সাক্ষাত্‍কারে। এর পরেই তাঁকে হুমকি দেওয়া হয়েছিল।

কিন্তু এই ‘হুমকি’র পরেও দেশের প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস দেখাচ্ছেন কী ভাবে? স্টর্মি জানান, আত্মসম্মান বজায় রাখতেই সাক্ষাত্‍কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত তাঁর। আর তাঁর মিথ্যা কথা বলার কোনও কারণ নেই বলেও জানান তিনি।

----
--