প্রবীণ বনাম তারুণ্যের লড়াইয়ে কার উপর আস্থা রাখবেন রাহুল?

নয়াদিল্লি: পদ একটা৷ দাবিদার দু’জন৷ রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়ে মুখ্যমন্ত্রী পদে প্রবীণ বনাম তরুণের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই৷ এই লড়াইয়ের ফল ঘোষণা হবে কিছুক্ষণ পরেই৷ তার আগে জাতীয় রাজনীতিতে চলছে জল্পনা৷ কে হবেন তিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী?

রাজস্থানে পাঁচ বছর ও মধ্যপ্রদেশ এবং ছত্তিশগড়ে ১৫ বছর পর ক্ষমতায় ফিরছে কংগ্রেস৷ মধ্যপ্রদেশে তো সরকার গঠনের দাবিও জানিয়ে এসেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি কমলনাথ৷ এখন আসল কাজটাই বাকি৷ সেটা হল তিন রাজ্যে কারা হবেন মুখ্যমন্ত্রী? ভোটের সময় কংগ্রেস কোনও মুখকে সামনে রেখে নির্বাচন লড়েনি৷ প্রবীণ ও নবীন সকল নেতাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করে কংগ্রেসকে জিতিয়েছেন৷ তাই কংগ্রেসের এই জয়ের কৃতিত্ব সবার৷

মরু রাজ্য রাজস্থানের দিকে তাকালে চিত্রটা অনেকটা পরিস্কার হবে৷ গতবার এখানে কংগ্রেস মাত্র ২১টা আসন পেয়েছিল৷ দলের এই দুর্দিনে এগিয়ে আসেন নবীন নেতা সচিন পাইলট৷ মাটি কামড়ে পড়ে থাকেন তিনি৷ মন দেন সংগঠনের কাজে৷ নানা সমস্যায় জর্জরিত কংগ্রেস দলটাকে খাদের কিনারা থেকে টেনে আনেন৷ প্রবীণ কংগ্রেস নেতা অশোক গেহলটও তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দেন৷

পাঁচ বছর পর দুই নেতার পরিশ্রমের ফল পায় কংগ্রেস৷ ৯৯ আসনে জয়ী হয় রাহুলের দল৷ তাই অশোক না সচিন কে হবে পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী তা নিয়ে চিন্তায় রাহুলও৷ তবে সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রীর মতো পদে বসার ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতাকে যদি প্রাধান্য দেওয়া হয় তাহলে নিঃসন্দেহে এগিয়ে অশোক গেহলট৷ কেননা এর আগে দু’বার রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেছেন৷ তবে রাহুল বরাবরই তরুণ প্রজন্মের উপর নেতৃত্বের ভার তুলে দেওয়ার পক্ষে৷ সেই নীতি নিয়ে এগোলে সচিন পাইলটের দিকেই পাল্লা ভারী৷

মধ্যপ্রদেশের চিত্রটা একইরকম৷ সেখানে প্রবীণ নেতা ও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ ও তরুণ নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া কংগ্রেসকে রাজ্যে জয়ের স্বাদ এনে দেন৷ ফলে এখানেও মুখ্যমন্ত্রীর দাবিদার দু’জনেই৷ তবে দলের একটা বড় অংশ কমলনাথকেই চান৷ রাহুল গান্ধী কমলনাথকে যখন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি নির্বাচিত করেছিলেন তখন অনেকেই সেই সিদ্ধান্ত নিয়ে সমালোচনা করেন৷

কিন্তু সব সমালোচনা উড়িয়ে কমলনাথ প্রথমে দলের প্রভাবশালী নেতা দিগ্বিজয় সিং, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার মতো নেতাদের সঙ্গে মিলে কংগ্রেসকে তুলে ধরেন৷ তাই এই জয়ের সিংহভাগ কৃতিত্ব কমলনাথের৷ ছত্তিশগড়ে আবার প্রবীণ নেতা ভূপেশ বাঘেলের দিকেই পাল্লা ভারি৷ এখানে মুখ্যমন্ত্রীর লড়াইয়ে আছেন তমরাধওয়াজ সাহু৷

---- -----