নয়াদিল্লি: ট্রেনের টিকিট ঠিক কতটা সস্তা সেটা বোঝাতে এবার আপেল কিংবা টুথপেস্টের সঙ্গে তুলনা টানল রেল কর্তৃপক্ষ। কত কম তাকায় ট্রেনে যাতায়াত করা সম্ভব তার একটা তালিকা তৈরি করা হল। যেমন, ট্রেনে দিল্লি থেকে আগ্রা যেতে লাগে ৮৫ টাকা যা এক কেজির আপেলের থেকেও সস্তা। আবার চণ্ডীগড় যেতে লাগে ৯৫ টাকা, যা ১৪০ গ্রাম টুথপেস্টের থেকেও সস্তা। অন্যদিকে, চণ্ডীগড় বাসে যেতে ভাড়া লাগে ২৬০ টাকা। আর আগ্রার বাস ভাড়া ২৮০ টাকা।

রেলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, যে সময় রেলের জিনিসপত্রের দাম বেড়ে গিয়েছে তখনও ট্রেন ভাড়া বাড়ানো হয়নি। বিশেষত প্রত্যন্ত এলাকায় ট্রেনের দাম কমই রয়ে গিয়েছে। বর্তমানেও অনেক রুটে ট্রেন ভাড়া বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তা থাকলেও এখনও পর্যন্ত সেরকম কোনও প্রস্তাব নেই। প্যাসেঞ্জার ট্রেনের ক্ষেত্রে ৩০,০০০ কোটি টাকা সাবসিডি দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে।

Advertisement

রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, দিল্লি থেকে জয়পুর ৩০৩ কিলোমিটারের ভাযা ১০৫ টাকা, যা ৫০০ এমবি-র মোবাইলের ডেটা প্যাকের থেকেও সস্তা। দিল্লি-দেরাদুনের জেনারেল ক্লাসের ভাড়াও তাই। যা এক কেজি রিফাইনড তেলের থেকেও কম। এ দুই রুটে বাস ভাড়া যথাক্রমে ৪৫০ ও ৪০০ টাকা। দিল্লি-লখনউ ৫১৩ কিলোমিটার দূরত্বে ট্রেন ভাড়া ১৫০। এই রুটের বাসভাড়া ৭০০ টাকা। লখনউয়ের রেলভাড়া এক কেজি তুর ডালের দামের থেকেও কম। একইভাবে দিল্লি-অমৃতসর ভাযা ১৪০ টাকা। যা এক কেজি সরষের তেলের থেকে কম। দিল্লি-জম্মু ভাযা ১৭৫ টাকা, যা হাফ কেজি দেশি ঘি-য়ের থেকেও কম দামী। জেনারেল ক্লাসে রেল ভাযা ধার্য করেছে কিলোমিটার প্রতি ২২ পয়সা থেকে ৪৪ পয়সা।

 

----
--