পাটনা: পাঁচ বছর আগে হারয়ে গিয়েছিল স্ত্রী। বিয়ের কিছুদিন পরেই স্ত্রী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ায় মারাত্মকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন হাতিম আনসারি। পুলিশের কাছে নিখোঁজ ডায়েরিও করেছিলেন। পাঁচ বছর ধরে প্রতি মুহূর্তে খুঁজে বেরিয়েছেন বিয়ে করা স্ত্রীকে। একসময় খোঁজ মিললেও পেলেন চরম সংবাদ। স্ত্রী আমানা ফিরতে চায় না হাতিমের কাছে। সে অন্য একজনের সঙ্গে ‘লিভ-ইন’ সম্পর্কে আবদ্ধ। স্বেচ্ছায় সেই সম্পর্কে জড়িয়েছে আমানা।

বিহারের মুজফফরপুর জেলার বিখারি গ্রামের ছেলে হাতিম আনসারি। বছর পাঁচেক আগে ওই জেলারই চিউয়ান্তা গ্রামের আমানার সঙ্গে জাঁকজমক করেই বিয়ে হয় হাতিমের। বিয়ের কিছুদিন পরে স্ত্রীকে নিয়ে কাজের খোঁজে ফরিদাবাদ গিয়েছিল হাতিম। চাকরি পাওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই নিখোঁজ হয়ে যায় আমানা। হাতিমের বিরুদ্ধে আমানাকে খুনের অভিযোগও তুলেছিল আমানার পরিবার। যদিও প্রমাণের অভাবে বিশেষ বিপাকে পড়তে হয়নি হাতিমকে। সম্প্রতি এক আত্মীয় মারফত হাতিম জানতে পারেন যে উত্তর প্রদেশের ফারুখাবাদ শহরে রয়েছে আমানা। পুলিশ সূত্রে খবর, অন্য একজনের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ হয়েই হাতিমকে ছেড়ে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যায় আমানা। নাম পালটে এখন কাজল হয়ে গিয়েছে আমানা।

----
--