ভয়ঙ্কর জঙ্গি সাগর ধৃত, তছনছ হবে নব্য জেএমবি ?

বিশেষ প্রতিবেদন:  তছনছ হবে নব্য জেএমবি সদস্যরা ? ভাঙন ধরবে ভয়াবহ এই বাংলাদেশি জঙ্গি সংগঠনে ? এমনই প্রশ্ন উঠছে৷ কারণ এই জঙ্গি গোষ্ঠীর মোস্ট ওয়ান্টেড নেতাদের অনেকেই নিহত বা ধৃত৷ এবার গ্রেফতার হল সাগর৷ ২০১৬ সালের ভয়াবহ গুলশন হোলি আর্টিজান ক্যাফে হামলার সেই ছিল অন্যতম অস্ত্র সরবরাহকারী৷ বৃহস্পতিবার তাকে বগুড়া থেকে গ্রেফতার করা হয়৷ পরে এই জঙ্গিকে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাছে পাঠানো হয়েছে৷

সাগরের সঙ্গে ধরা পড়েছে আরও এক জঙ্গি৷ তার নাম নিলয়৷ সেই নব্য জেএমবির অন্যতম শীর্ষ অর্থদাতা। গুলশন হামলার পর থেকে নব্য জেএমবিকে সংগঠিত করার চেষ্টা চালিয়ে আসছিল৷ বাংলাদেশ জঙ্গি দমন শাখা সিটিটিসি জানিয়েছে, দুই শীর্ষ জঙ্গি ধরা পড়ায় নব্য জেএমবিতে এই মুহূর্তে হাল ধরার জন্য বড় আর কেউ নেই৷

সাগর ধরা পড়ায় নব্য জেএমবি পরিচালনা করার মতো তেমন বড় মাথা নেই বলেই মনে করা হচ্ছে৷ তবে সংগঠনের মূল অংশ অর্থাৎ জেমবির অন্যতম শীর্ষ নেতা সালাউদ্দিন এখনও অধরা৷ তাকে ধরতে মরিয়া বাংলাদেশ-ভারত দুই রাষ্ট্র৷ জেএমবি এবং নব্য জেএমবি দুটি জঙ্গি সংগঠনই দুই রাষ্ট্রে সক্রিয়৷ তাদের লক্ষ্য যে করেই হোকে ইসলামি সন্ত্রাসবাদকে প্রতিষ্ঠা করা৷

- Advertisement -

পড়ুন: খাগড়াগড় বিস্ফোরণ চক্রী নাসিরুল্লার পর টার্গেটে সালাউদ্দিন

জঙ্গি সাগরের আসল নাম হাদিসুর রহমান সাগর ৷ সূত্রের খবর ২০১৪-১৫ সালে নব্য জেএমবি’র প্রধান ‘বাংলার বাঘ’ তামিম চৌধুরীর মাধ্যমে সাগর নব্য জেমবিতে যোগ দেয়। সংগঠনে বোমা তৈরির কারিগর হিসেবেই পরিচিতি৷ তার তার স্ত্রীকে আগেই গ্রেফতার করা হয়েছে৷ পুরনো জেএমবির বোমা এক্সপার্ট সাগর পরে নব্য জেএমবিতে যোগ দিয়ে সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ পদে উঠে আসে৷ রাজশাহী সংলগ্ন অঞ্চলে সে সক্রিয় ছিল৷ জানা গিয়েছে, গুলশন জঙ্গি হামলায় ভারত থেকে যে অস্ত্র পাচার করা হয়৷ সেই কাজের দায়িত্বে থাকা হাতকাটা নাসিরুল্লার অন্যতম সহায়ক ছিল সাগর৷

গুলশন হামলার অন্যতম অস্ত্র সরবরাহকারী সাগর গ্রেফতার

২০১৪ সালে দুর্গা পুজোর সময় বর্ধমান (পূর্ব বর্ধমান জেলা) শহরের উপকণ্ঠে একটি বাড়িতে বিস্ফোরণ হয়৷ এলাকাটি খাগড়াগড় নামে পরিচিত৷ প্রাথমিকভাবে মনে হয় দুর্ঘটনা৷ পরে সেই ঘটনার তদন্তে উঠে এসেছিল কেমন করে পশ্চিমবঙ্গের জমি ব্যবহার করে বাংলাদেশে নাশকতার পরিকল্পনা করেছে জেএমবি (জামাত উল মুজাহিদিন বাংলাদেশ) জঙ্গিরা৷ তারপরেই সক্রিয় হয় নব্য জেএমবি গোষ্ঠী৷ তারা ২০১৬ সালে ঢাকায় অভিজাত এলাকা গুলশনের হোলি আর্টিজান ক্যাফেতে হামলা চালায়৷ কুপিয়ে কুপিয়ে খুন করা হয় বিদেশি নাগরিকদের৷ এই মামলার অন্যতম আসামী ছিল হাতকাটা নাসিরুল্লা৷ তারই সাগরেদ সাগর এতদিন বিভিন্ন কৌশলে নিজেকে লুকিয়ে রাখে৷

Advertisement ---
---
-----