তালিবানি শাস্তি স্কুল শিক্ষিকাকে৷ বিবস্ত্র করে প্রকাশ্যে ঘোরানো হল এক মহিলাকে৷ চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ছত্তিশগড়ের যশপুর এলাকায়৷ এই ঘটনায় পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ার নির্যাতিতা শিক্ষিকা শনিবার মানবাধিকার কমিশনের শরণ নিলেন৷

ঘটনাটি ঘটে ২৯ এপ্রিল৷ কিন্তু, অভিযোগ সত্বেও পুলিশ এখনও পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেয়নি৷ পুলিশের এই আচরণে হতাশ ওই স্কুল শিক্ষিকা শনিবার মানবাধিকার কমিশনের দারস্থ হলেন৷
মানবাধিকার কমিশনে দায়ের করা অভিযোগে ওই শিক্ষিকা জানিয়েছে, তাঁর এক বোনপো গ্রামের একটি মেয়ের সঙ্গে ভালবাসার সম্পর্ক গড়ে তোলে৷ দু‘জনেই একই সম্প্রদায়ের৷ তারা দু’জন বিয়ে করবে বলে স্থির করে৷ দু’জনের বিয়ে নিয়ে কথাবার্তার মধ্যেই স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত অভিযোগ তোলে যে, ওই শিক্ষিকাকে মেয়েটিকে বিপথে নিয়ে যাচ্ছে৷ একই সঙ্গে শিক্ষিকার বোনপোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়৷ এর জন্য ১৯ এপ্রিল গ্রামে শালিসি সভা ডাকা হয়৷  গ্রামসভার চাপে ওই মেয়েটি সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা বলে৷ মানবাধিকার কমিশনে ওই শিক্ষিকার অভিযোগ, সেদিনের শালিসিসভায় তাঁকে মারধর করা হয় বিবস্ত্র করা হয় সকলের সামনে৷ পাশাপাশি, তাকে এক লক্ষ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে৷  ফলে, দিশেহারা নির্যাতিতা বিচারের আশায় মানবাধিকার কমিশনের শরণ নিতে বাধ্য হয়েছেন৷

Advertisement

————————————————————————————————————————————————–

----
--