মুখোমুখি পুলিশ দিদি-আসামী ভাই, থানাতেই ভাইফোঁটা জমজমাট

স্টাফ রিপোর্টার, ভাঙড়: অপরাধী সে জেলের ভিতরে৷ কিন্তু তাঁর মানুষ সত্ত্বাকে তো অস্বীকার করা যায় না৷ সেও কারোর ভাই, কারোর দাদা৷ তাই থানার মধ্যেই ভাইফোঁটার ব্যবস্থা করলেন পুলিশ কর্মীরা৷ সকাল থেকেই সেই ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান ঘিরে জমজমাট ছবি ধরা পড়ল দক্ষিণ ২৪ পরগণার ভাঙড় থানায়।

আসামিদের ভাইফোঁটা দেওয়ার পাশাপাশি শুক্রবার সকালে ভাঙড় থানা চত্ত্বরে গণ ভাইফোঁটারও ব্যবস্থা করে ভাঙড় থানা সমন্বয় সমিতি। থানার পুলিশ কর্মী থেকে শুরু করে এলাকার সাধারণ মানুষদের ভাইফোঁটা দেন পুলিশ মহিলা কর্মীরা ও এলাকার মহিলারা। ভাইফোঁটার অনুষ্ঠান শেষে কবজি ডুবিয়ে জমিয়ে খাওয়া দাওয়ারও ব্যবস্থা ছিল৷ সব মিলিয়ে ভাঙড় থানায় জমজমাট ভাবে পালিত হল গণ ভাইফোঁটা উৎসব।

আরও পড়ুন : প্রশ্নের মুখে অভিষেকের সততা, শুভ্রাংশুর চিঠিতে শাসকের অন্দরে তোলপাড়

- Advertisement -

ভাঙড় থানা সমন্বয় সমিতির উদ্যোগে এ বছরই প্রথম এই গণ ভাইফোঁটার আয়োজন করা হয়। শুক্রবার সকাল এগারোটা নাগাদ থানার লকআপেই আসামিদের ফোঁটা দেন থানার মহিলা পুলিশ কর্মী সুচরিতা, রেজিনারা। এরপর আসামিরা আদালতে চলে গেলে ভাঙড় থানার প্রাঙ্গনে শুরু হয় গণ ভাইফোঁটা।

সেখানে থানার পুলিশ কর্মীদের ফোঁটা দেওয়ার পাশাপাশি, ফোঁটা দেওয়া হয় এলাকার বহু সাধারণ মানুষ ও বিশিষ্ট মানুষকে৷ থানার মহিলা পুলিশ কর্মীদের পাশাপাশি এলাকার কলেজ পড়ুয়া ও সাধারণ মহিলারা এই গণ ভাইফোঁটায় অংশ গ্রহণ করেন।

আরও পড়ুন : ভাইফোঁটা নয়, এ বাড়ির মেয়েরা মাতলেন বিজয়ার সিঁদুর খেলায়

অনুষ্ঠান সম্পর্কে ভাঙড় থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি অশোকতরু মুখোপাধ্যায় বলেন, “এলাকার মানুষের সহযোগিতা ছাড়া এই ধরনের একটা অনুষ্ঠান করা সম্ভব ছিল না। সমস্ত সম্প্রদায়ের মানুষ এগিয়ে এসে এই অনুষ্ঠানটি সফল করেছেন। পাশাপাশি ভাইয়েরা বোনেদের পাশে থাকার, তাদের রক্ষা করার আশ্বাস দিয়েছেন। এই ধরনের অনুষ্ঠান করতে পেরে আমরা ভাঙড় থানার সকল পুলিশ কর্মীরা ভীষণ খুশি।”