স্টাফ রিপোর্টার,কলকাতা: ২৫ মিটার উঁচু পিলারগুলোর উপরে মাটি থেকে উচ্চতায় তৈরি হয়েছে ৬০ মিটার পরিধির একটি সুদৃশ্য গোলক৷ যেখানে থাকছে অত্যাধুনিক রেস্তরাঁ৷ একসঙ্গে ১০০ জন কলকাতা গেটে ওঠার সুযোগ পাবেন৷ মঙ্গলবার দিনভর শহরজুড়ে আলোচনা, বুধবারই উদ্বোধন হবে শহরের ঝুলন্ত রেস্তোরাঁর। তবে হিডকো চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন জানিয়েছেন, বুধবার উদ্বোধন হচ্ছে না। তবে কবে উদ্বোধন হচ্ছে সেই বিষয়ে কিছু জানাননি তিনি। যদিও সূত্রে খবর মুখ্যমন্ত্রী সময় দিলেই তাঁর হাতেই উদ্বোধন হবে দেশের অন্যতম এই ঝুলন্ত রেস্তোরার।

হিডকো সূত্রের খবর, কয়েক বছর আগে নিউ টাউনের নারকেলবাগান মোড়ে অর্থাৎ বিমানবন্দর থেকে শহরে ঢোকার মুখে একটি ‘বিশ্ব বাংলা গেট’ তৈরির পরিকল্পনা করা হয়েছিল। পরিকল্পনা অনুযায়ী হিডকো গেটটি তৈরি শুরু করে৷ সে কাজ শেষ হয়ে সুসজ্জিত বিশ্ব বাংলা গেট উদ্বোধন শুধু সময়ের অপেক্ষা তারপরই সাধারন মানুষ পৌঁছতে পারবে এক আশ্চর্য দেশে৷ মনে হবে আপনি শূন্যে ঝুলে রয়েছেন৷ থাকবে শূন্য থেকে শহর দেখার শো-এর ব্যবস্থা৷ যেখানে একসঙ্গে ১০০ জন ওঠতে পারবেন৷ থাকবে ঝুলন্ত রেস্তরাঁও৷ ঝুলন্ত রেস্তরাঁটি চালাবে HIDCO .

ভাইরাল হওয়া এই পোস্টার থেকেই মূলত বিভ্রান্তি ছড়ায়।

মাটি থেকে ২৫ মিটার উঁচুতে যখন উঠে সাড়ে তিন মিটার লম্বা ভিউয়িং গ্লাসে চোখ রাখলে সামনে ভাসবে আকাশপ্রান্ত৷ নিচ থেকে উপরে ওঠার জন্য রয়েছে দু’টি লিফট৷ এছাড়া রয়েছে আপৎকালীন সিঁড়িও। উপরে ওঠারসময় দেওয়ালে দেখা যাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি। পরপর দেখা যাবে বিদ্যাসাগর সেতু, গঙ্গাবক্ষে নৌকা ভ্রমনের প্রতিকৃতি। আবার কোথাও রবীন্দ্রনাথ,কোথাও বঙ্কিমচন্দ্র, স্বামী বিবেকানন্দ বা রাজা রামমোহন রায়ের উদ্ধৃতি। তালিকায় থাকছে আরও মনীষী৷

দিনে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ‘বিশ্ব বাংলা গেট’সাধারনের জন্য খোলা থাকবে৷ দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত গেটটি ঘুরে দেখতে পারবেন দর্শকেরা। নির্দিষ্ট সময়ের পরে সেটি পুরোপুরি রেস্তরাঁ হয়ে যাবে। থাকছে কাফেটেরিয়াও। থাকছে টিকিটের ব্যবস্থা৷

----
--