আই লিগের লক্ষ্যে বিশ্বকাপে পাঠ নিচ্ছে যৌনকর্মীদের সন্তানরা

ফাইল ছবি

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: আই লিগে সুযোগ পেয়ে ইতিমধ্যেই নজির গড়েছে দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমি৷ যদিও, অর্থের অভাবে আই লিগে অংশগ্রহণ যাতে অসম্ভব না হয়ে ওঠে, তার জন্য স্পনসরের খোঁজও চলছে৷ তবে, একই সঙ্গে প্রস্তুতিও জারি রয়েছে৷ আর, তারই অঙ্গ হিসাবে, বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রতিটি ম্যাচ থেকে পাঠও নিচ্ছে দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমির সদস্যরা৷

এই অ্যাকাডেমিতে যেমন যৌনকর্মীদের সন্তানরা রয়েছে৷ তেমনই, নাচনি, শবর, মুন্ডা সহ সমাজের বিভিন্ন প্রান্তিক অংশের মানুষের সন্তানরাও রয়েছে৷ বারুইপুরে দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির অধীনে থাকা হোমে আই লিগের জন্য প্রস্তুতিও চলছে এই অ্যাকাডেমির সদস্যদের৷ এ দিকে, ২১তম বিশ্বকাপ ফুটবল চলছে৷ পশ্চিমবঙ্গের যৌনকর্মীদের সংগঠন দুর্বার মহিলা সমন্বয় কমিটির মুখ্য উপদেষ্টা, ডাক্তার স্মরজিৎ জানা বলেন, ‘‘বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রতিটি ম্যাচ যাতে ভালো ভাবে দেখা যায়, তার জন্য বারুইপুরের হোমে বড় স্ক্রিনের টিভি সেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷’’

আরও পড়ুন: EXCLUSIVE: আই লিগে সুযোগ পেয়ে নজির গড়ল দুর্বার

- Advertisement -

কিন্তু, শুধুমাত্র ভালো ভাবে বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রতিটি ম্যাচ দেখার বিষয়টিও নয়৷ একই সঙ্গে প্রতিটি ম্যাচ থেকেও পাঠও নিচ্ছে দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমির সদস্যরা৷ এই অ্যাকাডেমির কোচ বিশ্বজিৎ মজুমদার বলেন, ‘‘টিভিতে বিশ্বকাপ ফুটবলের ম্যাচ দেখার সঙ্গে সঙ্গে বিশ্লেষণও চলছে৷ ওদের বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে৷ আই লিগের লক্ষ্যে নিজেদের যাতে ওরা আরও প্রস্তুত করে তুলতে পারে, তার জন্য চেষ্টা চলছে৷’’ আই লিগের অনূর্ধ্ব ১৩ এবং অনূর্ধ্ব ১৫, এই দুই টুর্নামেন্টেই এ বারই প্রথম দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমির পৃথক দুই দল অংশ নিচ্ছে৷ চার বছরের প্রচেষ্টায় এমন সাফল্যের দেখা মিলেছে বলেও তিনি জানিয়েছেন৷

আই লিগের এই দুই দলে যারা খেলবে, তাদের অধিকাংশই বারুইপুরের এই হোমে রয়েছে৷ অন্যরা রয়েছে বাড়িতে৷ তাদের কেউ যেমন রয়েছে আমলাশোলে৷ তেমনই কেউ আবার রয়েছে পুরুলিয়ায়৷ যদিও, জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে এই দুই দলের সকলের জন্য আবাসিক অনুশীলন শুরু হবে বারুইপুরের এই হোমে৷ এবং, আই লিগে দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমির পৃথক দুই দলের ম্যাচ যত দিন থাকবে, তত দিন এই অনুশীলন চলবে বলেও জানিয়েছেন বিশ্বজিৎ মজুমদার৷

আরও পড়ুন: আই লিগে খেলার জন্য স্পনসর খুঁজছে দুর্বার

তবে, একটি বিষয় এখনও তাঁদের ভাবিয়ে রেখেছে বলেও জানিয়েছেন দুর্বার স্পোর্টস অ্যাকাডেমির কোচ৷ কোন বিষয়? তাঁর কথায়, ‘‘স্পনসর৷ স্পনসর না পেলে কীভাবে যে আই লিগে অংশগ্রহণ করতে পারব আমরা, এখনও বুঝতে পারছি না৷’’

Advertisement ---
---
-----