কৃষক আন্দোলনে যোগ দিতে গিয়ে গ্রেফতার যোগেন্দ্র যাদব

চেন্নাই : পুলিশের হাতে গ্রেফতার যোগেন্দ্র যাদব৷ স্বরাজ অভিযান দলের প্রধান ও প্রাক্তন আম আদমি পার্টি নেতা যোগেন্দ্র যাদবকে তামিলনাড়ুর তিরুভান্নামালাই জেলা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ সরকারের বিরুদ্ধে একটি আন্দোলনে যোগ দিতেই তিরুভান্নামালাইয়ে গিয়েছিলেন যোগেন্দ্র যাদব৷ এই জেলায় সালেম–চেন্নাই আট লেনের এক্সপ্রেসওয়ে তৈরিকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতি৷

এক্সপ্রেসওয়ে তৈরির জন্য চলছে কৃষকদের জমি অধিগ্রহণ৷ এর প্রতিবাদে রাস্তায় নেমেছেন এলাকার কৃষকরা৷ সেই বিক্ষোভে কৃষকদের পাশে দাঁড়াতেই ওই জেলায় যাচ্ছিলেন যোগেন্দ্র। অভিযোগ সেখানে পৌঁছনোর আগেই তামিলনাড়ু পুলিশ তাঁর গাড়ি আটকায়।

যোগেন্দ্র এই পরিস্থিতি নিয়ে একটি ট্যুইট করেছেন৷ তিনি লিখেছেন কৃষকদের আহ্বানেই তাঁর সেখানে যাওয়া৷ কিন্তু পুলিশ মাঝ রাস্তাতেই তাঁর গাড়ি থামিয়ে দেয়৷ রীতিমতো দুর্ব্যবহার করা হয় তাঁর সাথে৷ জোর করে মোবাইল ফোন কেড়ে নেওয়া হয়৷ ধাক্কা মেরে তোলা হয় পুলিশ ভ্যানে৷ চেঙ্গাম থানার পুলিশের বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ করেছেন যোগেন্দ্র যাদব৷

আরেকটি ট্যুইটে যোগেন্দ্র যাদব বলেছেন এ ব্যাপারে ডিস্টিক্ট্র কালেক্টরের সঙ্গে কথা বলতে গেলেও তিনি তা শোনেননি৷ এমনকী পুলিশের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগই শুনতে চাননি তিনি৷ ডিস্টিক্ট্র কালেক্টর নাকি পুলিশি হস্তক্ষেপের কথা মানতেও চাননি৷ যোগেন্দ্র আরও বলেন ডিস্টিক্ট্র কালেক্টরকে ফোন করার কিছুক্ষণ পরেই পুলিশ নাকি তাঁদের গ্রেফতার করে৷ ঘটনায় অত্যন্ত ক্ষুব্ধ যোগেন্দ্র যাদব টুইটে লেখেন, পুলিশের দাবি তিনি সেখানে গেলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হবে। তাই তাঁকে আটকানো হয়েছে৷

পড়ুন: রোহিঙ্গাদের প্রতি ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ মনোভাব দেখাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার: BSF

সূত্রের খবর আন্দোলনকারী কৃষকদের সঙ্গে দেখা করার জন্য কোনও আগাম অনুমতি যোগেন্দ্র যাদব নেন নি। সেকারণেই তাঁকে সেখানে যেতে দেওয়া হয়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে৷

১০০ কোটি টাকা খরচ করে তামিলনাড়ু সরকার এই এক্সপ্রেসওয়েটি তৈরি করছেন। তার জন্য বিপুল পরিমাণ জমি অধিগ্রহণ করা হচ্ছে। তারই প্রতিবাদে আন্দোলন শুরু করেছেন কৃষকরা। তাদের দাবি এই এক্সপ্রেসওয়ের কোনও প্রয়োজন নেই, কারণ ইতিমধ্যেই দুই শহরের মধ্যে তিনটি লিংক রোড রয়েছে৷ অহেতুক এই এক্সপ্রেসওয়ে তৈরি করে কৃষকদের রুজি রোজগারে বাধা দেওয়া হচ্ছে৷

Advertisement
---