নুনেই লুকিয়ে প্লাস্টিকের গুঁড়ো, সতর্ক করল IIT

মুম্বই: নিত্যদিনের ব্যবহারের সামগ্রী প্লাস্টিক ক্রমশ এক বিভীষিকা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। মাত্রাছাড়া দূষণের কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে এই প্লাস্টিক। মাঝে-মধ্যেই প্লাস্টিকের চাল কিংবা প্লাস্টিকের ডিমের গুজব প্রকাশ্যে আসে বটে, তবে বাস্তবেই প্রতিনিয়ত আমাদের পেটে অনেক প্লাস্টিক যাচ্ছে। আইআইটি বম্বের এক গবেষণা থেকে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গেল, প্রত্যেকদিন আমরা যে নুন খাই, তাতেই নাকি মিশে আছে প্লাস্টিকের গুঁড়ো।

গবেষণা বলছে, যদি ধরে নেওয়া যায় যে একজন ব্যক্তি প্রত্যেকদিন পাঁচ গ্রাম করে নুন খায়, তাহলে তার শরীরে বছরে অন্তত ১১৭ মাইক্রোগ্রাম প্লাস্টিক যায়। এগুলি আসলে মাইক্রোপ্লাস্টিক অর্থাৎ প্লাস্টিকগুলো ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র কণার আকারে নুনের সঙ্গে মিশে থাকে। এই কণাগুলি পাঁচ মিলিমিটারে থেকেও ছোট হয়। আইআইটি বম্বের একটি টিম গবেষণা করে নুনের নমুনায় মাইক্রোপ্লাস্টিক পেয়েছে।

গবেষকরা জানাচ্ছেন, ৬৩ শতাংশ প্লাস্টিক থাকে টুকরো হিসেবে আর বাকিটা মিশে যায় নুনে। এক কেজি নুনে পাওয়া গিয়েছে ৬৩.৭৬ মাইক্রোগ্রাম মাইক্রোপ্লাস্টিক। আসলে সমুদ্রে মিশে থাকা প্লাস্টিকই মিশে যাচ্ছে নুনে।

- Advertisement -

এই সংক্রান্ত গবেষণা প্রকাশিত হয়েছে একটি সায়েন্স জার্নালে। তথ্য বলছে, বিশ্বের মধ্যে তৃতীয় নুন উৎপাদনকারী দেশ হল ভারত। তাই ভারতের নুনে এই প্লাস্টিক মিশে যাওয়ার ঘটনায় আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিজ্ঞানীরা। গবেষকরা জানাচ্ছে, সমুদ্র থেকে কীভাবে নুন সংগ্রহ করা হচ্ছে তা সবসময় সঠিকভাবে পরীক্ষা করা হয় না। ফলে ক্রমশ খাবারে প্লাস্টিক মিশে যাওয়ার সম্ভাবনা বাড়ছে।

Advertisement ---
-----