কোনও মহিলার সঙ্গে জোরপূর্বক সম্পর্ক করলে পরজন্মে কি হয় জানেন?

‘জন্ম-মৃত্যু-বিয়ে সবই বিধাতার লিখন’৷ প্রাচীনকাল থেকেই এই প্রবাদ বাক্যটি প্রচলিত রয়েছে৷ এই সমস্ত বিষয়ে নাকি মানুষের কোনও হাত নেই৷ কিন্তু ‘কর্ম’ কথাটির সঙ্গে হয়তো সকলেই কমবেশি পরিচিত৷ আপনার এই জীবনের কাজ এবং অপরাধই ঠিক করে দেবে আপনার পরবর্তী জীবন৷ হিন্দু পুরানেই রয়েছে এই বিষয়ে বিশদ বর্ণনা৷

হিন্দু পুরাণ অনুযায়ী, আমাদের বর্তমান জীবন পুরোটাই নির্ভর করে আমাদের অতীতের কাজের উপর৷ অতীতে আমরা কি ভালো কাজ করেছি, তার উপরই নির্ভর করে আমাদের আগামী জীবন কেমন কাটবে৷ আমাদের এই জীবনের সমস্ত ভালো এবং খারাপ কাজগুলিই ঠিক করে দেয় আমাদের পরবর্তী জীবন৷ তার মানে আপনি যদি এই জন্মে একের পর এক খারাপ কাজ করেও পার পেয়ে যান, তাহলে আনন্দ পাবেন না৷ জেনে রাখবেন, কোনও এক হিসেবের খাতায় এই সমস্ত হিসেব নথিভুক্ত হচ্ছে৷ যার ফল আপনি পাবেন পরের জন্মে৷

তবে কে এই বিষয়টির উথ্থাপন করেন? মহর্ষি বেদব্যাস পুরাণের মাধ্যমে এই বিষয়টি প্রকাশ্যে এনেছেন৷ কথিত আছে, কোনও আত্মা যদি আবারও মানুষ হয়ে জন্মায়, তাহলে মায়ের গর্ভে ন’মাস থাকার সময়ই সে ভগবানের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ থাকে পৃথিবীতে গিয়ে ভালো কাজ করার৷ কিন্তু পৃথিবীতে তার জন্ম হওয়ার পরই সে ভুলে যায় এই নয় মাসের কথা এবং সে আবারও খারাপ কাজে জড়িয়ে পড়ে৷

আপনি আপনার জীবনে যত বাজে কাজ করবেন যেমন- চুরি, ডাকাতি, খুন, ধর্ষন এবং প্রতারণার মতন গুরুতর অপরাধ করলেই আপনার পাপ বেড়ে যাবে৷ বেদব্যাসের মতে, আত্মার ভাগ্য এই পাপের উপরই নির্ভর করে৷ তবে এই পাপ গুলি ঠিক কেমন হতে পারে?

১)যদি কোনও ব্যক্তি কোনও মহিলার সঙ্গে জোরপূর্বক সম্পর্ক করে৷ তবে অভিযুক্ত সেই ব্যক্তি পরজন্মে নাকি নেকড়ে বাঘ হয়েও জন্মাতে পারেন৷

২) আবার, বাড়ির গুরুজনদেরকে অপমান করলেও পরের জন্মে আপনি কাক হয়ে জন্মাবেন৷

৩) আবার চুরির অপরাধে যদি কোনও ব্যক্তি অভিযুক্ত হন, তবে সেই ব্যক্তি পরের জন্মে পায়রা হয়ে জন্মাতে পারে৷ তবে তার গোটা জীবনটাই কেটে যাবে খাঁচার ভিতরে৷

বেদব্যাসের রচিত কাহিনীতে এই সমস্ত বিষয়েরই উল্লেখ রয়েছে৷

Advertisement
---
-----