প্রধানমন্ত্রীর নাম না জানায় মার খেয়ে পুলিশে দ্বারস্থ

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: প্রধানমন্ত্রীর নাম জানেন না জামাল মোমিন৷ পেশায় শ্রমিক এই যুবকের জাতীয় সঙ্গীত সম্বন্ধেও কোনও ধারণা নেই৷ তাই চলন্ত ট্রেনে শারীরিক হেনস্তার শিকার হতে হয়েছিল তাঁকে৷ সেই হেনস্তার ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল৷

ঘটনা ঘিরে হইচই পড়ে গিয়েছে চারিদিকে৷ অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিও উঠেছে বিভিন্ন মহল থেকে৷ এবার জামালের পরিবারও সেই দাবিতে সরব হল৷ মালদহের কালিয়াচক থানার শেরশাহী গ্রামের বাসিন্দা ওই যুবকের পরিবার তাই শনিবার পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছে৷ আর এ ব্যাপারে তারা পাশে পেয়েছে, স্থানীয় একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে৷

আরও পড়ুন: দারুণ অফার! ১৫ হাজারের ফোন কীভাবে পাবেন ৯৯৯ টাকায়?

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, ঘটনাটি ঘটেছিল ১৪ মে৷ সেদিন তিনি হাওড়া-মালদহ প্যাসেঞ্জারে ফিরছিলেন৷ কর্মসূত্রে তিনি গুজরাতে থাকেন৷ সেখান থেকেই তিনি ফিরছিলেন৷ সেই সময়ই ঘটনাটি ঘটে৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওয় দেখা গিয়েছে, জামাল মোমিনকে প্রশ্ন করা হচ্ছে, ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর নাম৷ কিন্তু সেই তিনি বলতে পারেননি৷ এমনকী জাতীয় সঙ্গীতও তিনি জানেন না৷

এর পরই তাঁর উপর হেনসস্তা শুরু হয়৷ তাঁকে মারধর করা হয়৷ অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়৷ জামালের স্ত্রী জুলেখা বিবির দাবি, ‘‘ঘটনার দিন বাড়িতে ফিরেই গোটা বিষয়টি বিস্তারিত জানায় জামাল৷ আমরা গরিব মানুষ৷ তাই এই নিয়ে বেশী দূর যায়নি৷ কিন্তু যখন সমাজসেবী সংস্থা আমাদের পাশে দাঁড়ায় এরপর আমরা অভিযোগ দায়ের করি৷ যারা এই ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের কঠোর থেকে কঠোরতম শাস্তি চাই৷’’

আরও পড়ুন: রাশিয়ান বাক মিসাইলের আঘাতেই ধ্বংস হয় MH-17

এই ঘটনায় জামালের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে একটি সমাজসেবী সংস্থা৷ ওই সংস্থার সদস্য শ্যাম মণ্ডল বলেন, ‘‘এটা অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা৷ এই ঘটনা বাংলার সংস্কৃতিকে নষ্টের পথে নিয়ে যাচ্ছে৷ আমরা এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি৷’’

Advertisement ---
-----